প্রানীর প্রতি এক তরুণীর বিরল ভালবাসা ।
Dhanmondi lake
Share with your friends
  •  
  •  
  •   
  •  

ধানমণ্ডি লেকের রবীন্দ্র সরোবরের মুক্ত মঞ্চের সামনে এসে দাঁড়ালেন এক তরুণী। এরপরই কোথা থাকা হুড়মুড় করে ছুটে এলো অনেকগুলো কুকুর, কোনো বিদেশি কুকুর নয়। সব রাস্তার কুকুর। একপাল রাস্তার কুকুর এক তরুণীকে ঘিরে ধরেছে, কী আতঙ্কের কথা! ভয়ের কথা! শিকারী কুকুরের কথা আলাদা। এখনকার ছেলেমেয়েরা কোনো রাস্তায় কুকুর দেখলে সেদিকে পা বাড়ানোর কথা চিন্তা করেন না। কিন্তু এই তরুণীর শরীরেও উঠে পড়েছে একটা কুকুর। কী লোমহর্ষক ব্যাপার রে বাবা!  বিষয়টা ভাবলেই তো অনেকেই শিউরে উঠবেন এই বলে কখন না কুকুরটা দাঁত বসিয়ে দেয়। তারপর ভ্যাকসিন।

না এমন কিছুই নাই। ধানমণ্ডি লেকের যতগুলো কুকুর আছে সব কুকুর কুর্নিশ করে এই তরুণীকে। তরুণীর নাম তন্বী। থাকেন ফার্মগেট। কিন্তু কেন কুর্নিশ করে কুকুরগুলো? এর যথেষ্ট কারণ আছে। গল্পটা বলার জন্য একটু পেছনে চলে যেতে হবে। কুকুরকে ভালোবাসেন তন্বী। শুধু কুকুর না সব প্রাণীর প্রতিই অপরিসীম ভালোবাসা রয়েছে তাঁর। তখনও ঢাকায় আসেননি। গ্রাম থেকে ঢাকায় আসার সময় তিনি দেখতে পেলেন এক কুকুরছানা। গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে নিমিষেই মরে গেল। ভয়ংকর কষ্ট পেলেন কিশোরী তন্বী

ঢাকায় এলেন। ইন্টারমিডিয়েটে ভর্তি হলেন ধানমণ্ডির একটি কলেজে। কলেজ আসার সময়ই ফার্মগেটেই দেখলেন একটি কুকুরের বাচ্চার লেজ কেটে নেওয়া হয়েছে। ফের সেই কষ্ট হৃদয় ছুঁয়ে গেল। কেন কষ্ট দেওয়া হবে এভাবে? টের পেলেন হৃদয়ে এই প্রাণীটির প্রতি প্রবল মমত্ববোধ রয়েছে। ওই সময়ে মাঝে মাঝে ক্লাস না থাকলে ধানমণ্ডি লেকে বন্ধুদের সাথে আসতেন। দেখতেন কতগুলো কুকুর এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়াচ্ছে। দু-একটাকে কাছে ডাকতেন। ব্যাগে যা থাকতো তাই খেতে দিতেন। এরপর দেখলেন যে সংখ্যাটা ক্রমশ বাড়তে লাগল। কিছুদিন পর তিনি খেয়াল করলেন প্রতিদিনই লেকে আসছেন আর কুকুরগুলোকে খাবার দিচ্ছেন। আর কুকুরের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। সেটা ২০০৯ সালের ঘটনা।

তন্বীর টিফিন খরচ ১০০ টাকা। পরিবার থেকে এটাই দেওয়া হতো। তন্বী ১০০ টাকা থেকে ৫০ টাকা প্রতিদিন আলাদা করে ফেলতেন এবং এই টাকায় ধানমণ্ডি লেকের কুকুরগুলোর খাবার যোগান দিতেন। কুকুরগুলো ধীরে ধীরে এতটাই তন্বীর ভক্ত হয়ে গেল যে, তন্বীর গন্ধ পেলেই তারা কোত্থেকে বাঁধ ভেঙে চলে আসে। এর উদাহরণ কি ‘হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা’ হতে পারে? মনে হয় না। সেটা তো ছিল বাঁশির জাদু। আর তন্বীর এটা ভালোবাসার জাদু। এটা একদিন কিংবা দুই দিনের গল্প না। তন্বী ২০০৯ সাল থেকে কুকুরগুলোকে নিয়মিত খাইয়ে আসছেন।

ধানমণ্ডি লেকের মুক্ত মঞ্চ ও আশপাশের সব কুকুর তন্বীর পোষা। তন্বীর কুকুরপ্রীতি কিংবা তন্বীর প্রতি কুকুরের আনুগত্য দেখে লেকে আসা মানুষরা বিস্ময় নিয়ে ফিরে যায়।

%d bloggers like this: