আমার কবিতা গুলি – মুনিমা মান্নান শৈলী
রোমান্টিক কবিতা
Share with your friends
  •  
  •  
  •   
  •  

 “মানুষ এবং বৃক্ষ”

তুমি মানুষ, আমি বৃক্ষ-
হৃদয় তোমার মমতায় পরিপূর্ণ।
আমার হৃদয়? সেতো জ্বালানি আর-
অগ্নিশিখায় চূর্ণ।

তুমি মানুষ, আমি কঠিন বৃক্ষ-
ভালোবাসতে তোমার নেই কোন মানা।
আমার ভালবাসা? নির্জীব আর নিদারুন,
সে কথা সবারই জানা।

তুমি মানুষ, আমিতো এক বৃক্ষ-
অনুভূতিগুলো প্রতিনিয়ত তোমায় ভাবায়।
আমার অনুভূতি? সে যে শুকনো পাতা হয়ে,
প্রতি বসন্তে ঝরে যায়।

…………

বৃষ্টি-কথা

বৃষ্টির মত স্বচ্ছ ছিলে তুমি,
থেমে থেমে নামতে হঠাৎ করে।
মাঝ রাস্তায় ভিজিয়ে দিতে আমায়,
অজানা পথের অজানা প্রান্তরে ।

ডুবিয়ে দিতে আমার চলার পথ,
মুছে দিতে পথের সব ধূলো।
ক্লান্তি আর গ্লানি দূর করে,
সেই বৃষ্টি আজ কোথায় হারালো।

আজও আকাশ মেঘলা হয়ে আছে,
শীতল হাওয়া বইছে দক্ষিণের।
ভাসিয়ে দিবে নতুন উন্মাদনায়,
অপেক্ষা শুধু ঝুম বর্ষণের।

………।

“স্বপ্ন”

স্বপ্ন আমার তোমার মতই দিচ্ছে শুধু ফাঁকি।
স্বপ্ন আমার হাতছানি দেয় বন্ধ করলে আঁখি।

স্বপ্ন আমার প্রতি রাতে কাঁদায় আবার হাসায়।
স্বপ্ন আমার মিথ্যে আশায় তোমাকে ভালোবাসায়।

স্বপ্ন আমার স্বপ্ন দেখায় যদিও সেটা ভুল।
স্বপ্ন আমার নিছক মিথ্যে ডুমুরেরই ফুল।

স্বপ্ন আমার আকাশে উড়ায় আবার ডাঙায় নামায়।
স্বপ্ন আমার স্বপ্ন হয়েই আটকে রইলো ভাবনায়।

………………

“অতীত”

অতীত আমায় পিছু ডাকে হায়-
ভুলতে গেলেও ভুলতে না দেয়।
হারানো স্মৃতি, হারানো সেই দিন,
ধূসর থেকে হচ্ছে আবার রঙ্গিন।
পেয়ে হারানোর ব্যথা নিয়ে আজ-
অতীত নিচ্ছে বর্তমানের সাজ।
কেন মিছে সব মনে পড়ে যায়,
মৃত সুখেরা প্রাণ ফিরে পায়।
সুর হারানো গানগুলো গাই,
পথ ভুলে শুধু অতীতে হারাই।
মনের অজান্তেই অশ্রু টলমল-
শুকনো নদী ফিরে পায় জল।
দেয়াল গড়ি দৃঢ় প্রতিজ্ঞার-
হারাতে কভু দেবো না এবার।
তবুও যদি না হয় সেটা,
অতীত থাকে অতীতেই সাঁটা।
প্রভুর কাছে একটাই মিনতি-
ধ্যানের মাঝে তারই আকুতি।
এ জন্মের পরে যদি আরেক জন্ম হয়-
তার সাথেই যেন আমার জোড়া হয়।
অনুভুতিগুলোর ভিতর আবার জীবন খুঁজে পাই,
সকাল দুপুর রাত্রিতে শুধু তাকেই ভালোবাসতে চাই।

………………

“আমি ছেলে হবো”

যদি এ জন্মের পর আরেক জন্ম থাকে-
অবশ্যই আমি ছেলে হবো।
যখন হাজার লোভাতুর দৃষ্টি আমায় দেখে উন্মাদ হয়-
কান্না চাপিয়েই ভেবে বসি, আমি ছেলে হবো।
যখন নিজের স্বাধীনতা বলে আমার কিছুই থাকে না বাকি-
মনের অজান্তে ভাবি, আমি ছেলে হবো।
যখন বৈষম্য আর ভেদাভেদ যেন আমার নিত্যদিনের সঙ্গী-
ভাবতে দোষ কি, আমি ছেলে হবো।
যদি ধর্ম, সমাজ, শৃঙ্খলা, বিধান আর প্রথা কেবল আমাকেই স্পর্শ করে-
তবে সেই ভালো, আমি ছেলে হবো।
যদি সকল অপরাধের শাস্তি শুধু আমার জন্যই বরাদ্দ-
তবে হ্যাঁ, আমি ছেলে হবো।
যদি সব দোষ শুধু আমাকেই গ্রাস করে-
তাহলে কেন নয়, আমি ছেলে হবো।

“ছেলে” যদি আমার সব সমস্যার সমাধান,
তবে এই তো ভালো, আমি ছেলেই হবো।

…………………

যদি হও…

যদি হও একলা পথের সঙ্গী,
দাও হতাশ জীবনের আশা।
তবে বুঝবো আমি প্রিয়,
তুমিই আমার ভালোবাসা।

যদি দাও মুছিয়ে চোখের পানি,
অথবা গোমরা মুখের হাসি।
তবে বুঝবে তুমি প্রিয়,
আমি তোমাকেই ভালবাসি।

যদি দাও বিপদে বাড়িয়ে হাত,
হও আঁধার ঘরের আলো।
তবে বুঝবো আমি প্রিয়,
তুমি আমাকেই বাসো ভালো।

যদি হও হারানো পথের দিশা,
অথবা নির্ঘুম রাতের ঘুম।
তবে বুঝবে তুমি প্রিয়,
তোমাতেই আমার প্রেম।

………………..

 

“সেই আমি”

যখন জীবন থমকে দাঁড়ায়,
নদীর বুকে খেয়া হারায়।
তোমার কথাই মনে পড়ে,
সকাল বা রাতে ঘুমের ঘোরে।
বিষন্ন আমি একলা বসে,
ভাবছি তোমায় ভালোবেসে।
বুকের ভিতর কষ্ট জমে,
থাকনা এবার একটু থেমে।
বিশাল আকাশ কেঁদেছে জানি,
আমার দুঃখে সেটাও মানি।
স্বপ্নে শুধু দেখি তোমায়,
কেমন করে ভুলেছো আমায়।
হাজার স্মৃতির কোলাহলে,
অজস্র ফোটা অশ্রুজলে।
মনের মাঝে কেবল তুমি,
আশাহত হৃদয়ে সেই আমি।

………………

“বড় হয়েছি”

ছোট ছিলাম ভালোই ছিলাম
কেনো তবে বড় হলাম।
কেনো নিজের রাজ্যভার
নিজের হাতে তুলে নিলাম।

যখন আমি ছোট ছিলাম
আমার পাশে মা ছিল।
কষ্ট দুঃখ কিংবা হতাশা
সবকিছু আপন করে নিল।

যখন আমি ছোট ছিলাম
মাথার উপর বাবা ছিল।
চাওয়ার আগেই সবকিছু
হাতের মুঠোয় এনে দিল।

যখন আমি বড় হলাম
নিজের যোগ্য নিজেই হলাম।
কেবল কষ্টগুলো বলার জন্য
কাউকে নাহি পাশে পেলাম।

মাথার উপর ছাদ নেই
আগলে রাখার কোল নেই।
নিজের দুঃখ বুকে চেপে
নিজেকে নিজে সান্ত্বনা দেই।

এত লোকের ভীড়েও আজ
নিজেকে বড় একা লাগে।
মনের অজান্তেই ভেবে বসি
বেশতো ভালো ছিলাম আগে।

…………………

অনেক যত্নে গড়া

অনেক যত্নে গড়া আমার ভালোবাসা-
তোমার হাতে দিয়েছিলাম তুলে।
সময়ের সাথে আমিও কেমন করে
নিজের অস্তিত্ব নিজেই গেলাম ভুলে।

বিশ্বাস দিয়ে গড়েছিলাম দুর্গ
সে দুর্গের তুমিই ছিলে সব।
দিন আর রাতে প্রেমের আলোয়-
উঠতো বেজে সুখের কলোরব।

ভালোবাসার কমতি ছিল না
মিছে আশার খামতি ছিল না।
তোমায় নিয়ে হাজার স্বপ্ন দেখা
সেই স্বপ্নের কোন মানে ছিল না।

চূর্ণ হলো বিশ্বাসেই দুর্গ
কোথায় গেল সেই ভালোবাসা।
ভেঙ্গে যাওয়া স্বপ্ন গুলো আজ
খুঁজে পায় না আর আশা-ভরসা।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

X
%d bloggers like this: