আমার অগোছালো সময়
Share with your friends
  •  
  •  
  •   
  •  

আমার একটি অভ্যাস আছে ভালও বলতে পারেন আবার খারাপ ও বলতে পারেন। তবে আমি উপকার পেয়েছি।
আসুন জানা যাক।
খুব ছোটবেলা থেকেই আমার বই পড়ার নেশা ছিল। একেবারে কে জি ওয়ান থেকে আমার কমিক বই পড়া শুরু হয়। তখন আমি চিটাগাং সানসাইন গ্রামার স্কুলের ছাত্রী। বছরের শুরুতেই বাবা একজন স্যার রাখেন বাসায় পড়ানোর জন্য। স্যারের নাম ছিল বাদল।
আমি খুব ইন্ট্রভার্ট ছিলাম। সহজে কারো সাথে লজ্জায় কথা বলতাম না। যদিও সময়ের সাথে সাথে নিজেকে অনেক পরিবর্তন করেছি।
তো জানিনা কেন স্যার আমাকে খুবি আদর করতেন। প্রথম কয়েকদিন আমি কোন কথায় বলতাম না উনি একায় বকে যেতেন। শুধু লিখতে দিলে লিখে দিতাম। আমাকে যায় পড়তে দিতেন আমি খুব দ্রুত শিখে লিখা শুরু করতাম।
পড়ার প্রতি আমার ভীষন নেশা উনি টের পেয়েছিলেন কিনা জানি না। কয়েকদিন পর আমাকে একটি ছোট পাতলা কালারফুল বই এনে দিলেন। আমি অনেকক্ষন তাকিয়ে থেকে জিজ্ঞেস করেছিলাম , কার জন্য? উনি শুধু হাসলেন।
পাশে বাবা দাঁড়িয়ে ছিল বলল, থ্যাংক ইউ বল!
আমি বললাম , থ্যাংক ইউ।
উনি বললেন, এখন থেকে তুমি প্রতিদিন এখান থেকে এক পৃষ্ঠা করে পড়বে আর কেমন লাগছে আমাকে জানাবে।
স্কুলের বইয়ের বাইরে আমার প্রথম বই পড়া শুরু!!
এরপর আমাকে বই পড়া থেকে কেউ থামাতে পারেনি। যদিও থামানোর চেষ্টা কম করা হয়নি। আমার শ’খানের উপর বিল্লু আর চাচা চৌধুরি ছিল। চকলেট, চিপস আর বই ছাড়া তেমন কোন বাহানা করতাম নয়া।
আজো আমার কাছে দিনগুলো তরতাজা। চোখ বন্ধ করলেই যেন দেখতে পায় স্যারকে।
কমিক বইটি ছিল চাচা চৌধুরী ও সাবুর। যা তখন অনেক জনপ্রিয় ছিল। উনি আমাকে এক বছর পড়িয়েছেন। কোথায় ভাল চাকরি হওয়াতে আর পড়ান নি।
এবং উনি চলে যাওয়াতে আমি কিযে কান্না করেছি। আজো আমার খারাপ লাগে। কিছু মানুষ এতই মনে জায়গা করে নেয় যে তারা হারিয়ে যাওয়ার অনেক পরও আক্ষেপ থেকে যায় কেন আরো একটিবার দেখা হল না। জানি না উনি কেমন আছেন এখন। যেখানেই থাকুক যেন ভাল থাকেন।
উনি এই একবছরে এমন কিহু গুন তৈরি করে গেছেন আমার মাঝে যা আজো আমার খারাপ সময়গুলোতে অনেক কাজে লাগে।
আমি যখনি কোন কারনে হতাশ হয়ে লিখাপড়া প্রায় বন্ধই রাখতাম আর বুঝতে পারতাম আমি মন বসাতে পারছিনা তখনি গল্পের বই পড়া শুরু করে দিতাম। এমনও হয়েছে আমি পড়ার বইয়ের উপর গল্পের বই রেখে পড়ছি। যখনি বুঝতে পারলাম আমি পুরপুরি কাহীনিতে চলে গেছি তখনি গল্পের বই ধুম করে বন্ধকরে চিল্লায় চিল্লায়ে গলা ফাটিয়ে পড়ার বই পড়া শুরু…………
আচ্ছা কারো সাথে মিলে গেলে জানাবেন!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

X
%d bloggers like this: