মানবকুলের কৃপণতা লইয়া একখানা যুৎসই আলোচনা
কৃপণ কৃপণের কিপ্টামি সহ্য করতে পারে না গোপালভাড়
Share with your friends
  •  
  •  
  •   
  •  

আসুন আরও একবার এই উষ্ণ বঙ্গীয় বদ্বিপ সমতট অঞ্চলের মানবকুলের কৃপণতা লইয়া একখানা যুৎসই আলোচনা করিয়া লই।

আমার অপনার চারিপাশে এমন কিছু বঙ্গীয় সন্তানের দেখা মিলিয়া যাইবে যাহারা কৃপনতা কে রীতিমতো শিল্পের পর্যায়ে লইয়া গিয়াছেন। ইহারা যখন কাঁচা বাজার করিতে যাইবেন তখন দেখিবেন এক সাধের লাউ কিনিতেই আধা ঘন্টা লাগাইয়া দিবেন এবং লাউ কচি কিনা ইহা পরীক্ষা করিতে যাইয়া লাউয়ের উপর আঙুলের নখ দিয়া এমন ভাবে টিপ দিয়া দেখিবেন যে ঐখানে রীতিমত একখান গর্ত করিয়া ফেলিবেন। এবং আরও কয়েকখান লাউয়ের এইরূপ সর্বনাশ করিয়া লাউ বিক্রেতাদের রোষানলে পড়িয়া যাইবেন এবং বিক্রেতা স্বয়ং বলিয়া বসিবেন স্যার আপনার নিকট আমি লাউ বিক্রি করিবনা। আপনি আমার হইতে একখান লাউয়ের বীজ লইয়া যান এবং উহা আপনার গৃহের ছাদে লাগাইয়া যেই লাউ হইবে সেই কচি লাউ খাইয়েন। বীজ আপনাকে ফ্রী দিব কোনো মাল কড়ি ইহার জন্য আমাকে প্রদান করিতে হইবে না। তবু আপনি আমার দোকানের সামনে হইতে সরিয়া যান। এক এক করিয়া আমার দশ খান লাউয়ের যে গর্ত করিয়া দিয়াছেন তাহা তো রীতিমতো সুয়েজ খাল বানাইয়া দিয়া গেলেন। উনার লাউ ক্রয় করা আর হইবে না। কৃপনতা করিয়া একখানা লাউয়ের বীজ ফ্রী পাইয়াছেন ইহাই উনার বড় প্রাপ্তি। 

ইহার পর উনি যাইবেন যাহা ছাড়া বাঙালীর ভোজন কখনোই পূর্ণতা পায় না সেই গো মাংসের দোকানে। উনি যাইয়াই বলিবেন এই তোমার দোকানের মাংসের মধ্যে খালি হাড্ডি ঢুকাইয়া দাও। হাড্ডি কমাইয়া আমাকে আধা কেজি গোমাংস দিয়া দাও। দোকানদার তাহার পান চিবানো দন্ত বাহির করিয়া বলিবেন স্যার আমাকে একখানা হাড্ডি ছাড়া গরু যোগাড় করিয়া দিবেন? যদি দিতে পারেনতো আপনাকে আমি শতভাগ নিশ্চয়তা দিতেছি আপনাকে হাড্ডি ছাড়া আধা কেজি মাংস দিয়া দিব। দোকানদারের এই বিদ্রুপাত্মক বাক্য শুনিয়া উনি বিরস বদনে বলিবেন ঠিক আছে কৃপনতা করিয়া মিলাইয়া ঝিলাইয়া আধা কেজি দাও বাসায় শশুরকুলের মেহমান আসিয়াছেন।

ইহারা আপনার সহিত কোথাও ভোজন করিতে গেলে লক্ষ্য করিয়া দেখিবেন তাহারা গোগ্রাসে খাবার খাইয়া লইতেছে,যাহা আপনি তিন বেলাতেও এই পরিমাণ ভক্ষণ করিতে পারিবেন না। অথচ যখন বিল প্রদান করিবার সময় কাউন্টারের নিকট যাইবেন দেখিবেন তাহারা বলিয়া বসিবেন,কৃপনতা করিয়া বলিবে হায় সর্বনাশ  আমিতো মনের ভূলে মানিব্যাগ আপিসের ড্রয়ারে রাখিয়া চলিয়া আসিয়াছি। ভদ্রতার খাতিরে আপনি নিজেই বিল প্রদান করিয়া দিলেন। তাহার চতুরতার নিকট আপনি আবারও পরাজিত হইবেন।

আর ভুলেও যদি কখনও এই প্রজাতির দ্বিপদী প্রাণী আপনার সহিত পানশালায় যাইয়া থাকেন তো খেয়াল করিয়া দেখিবেন মাতাল হইয়া গেলেও ইহারা বিল প্রদানের সময় পিথাগোরাসের উপপাদ্যের ন্যায় ত্রিভুজের বাহুর দৈর্ঘ্য ধরিয়া যেমন করিয়া আমরা ইশকুল জীবনে উপপাদ্যের সমাধান করিতাম ঠিক সেইরূপ নিখুঁত হিসাব করিয়া বিল প্রদান করিবেন। এমনকি আপনি দুই পেগ সুরা বেশি পান করিয়াছেন উহাও উনি মাতাল অবস্থায় মনে রাখিবেন এবং কৃপনতা করিয়া উহার অতিরিক্ত বিল আপনাকেই প্রদান করিতে বলিবেন।

ইহারা দেখিবেন ঘন ঘন শ্বশুরবাড়ি যাইবেন। ইহারও একখান গভীর কারণ রহিয়াছে।ওই বাড়িতে গেলে শুধু থাকা না, ভালো ভালো উপাদেয় খাবার তিনি খাইতে পারিবেন। যেই মানুষ কিনা পুরা বাসার জন্য আধা কেজি গোমাংস ক্রয় করিয়া থাকেন তিনি শশুরববাড়ি যাইয়া এক বারেই আধা কেজি গোমাংস ভক্ষণ করিয়া ফেলিবেন এবং স্ত্রীকে বলিবেন প্রেসারের ওষুধ লইয়া আসো ডাবল ডোজ খাইতে হইবে প্রেশার মনে হয় বাড়িয়া গিয়াছে।

ইহাদের গৃহে আপনি একখান প্রমান সাইজের রেজিস্টার খাতা পাইবেন উহাতে তিনি প্রতিদিনের হিসাব লিখিয়া রাখিবেন। এমনকি আপিস হইতে আসিবার পথে কোনো নিঃস্ব ভিখারীকে দুই টাকা প্রদান করিয়াছেন উহাও তিনি হিসাবের খাতায় লিখিয়া রাখিবেন।

ইহারা দেখিবেন ঢাকার আশেপাশে জমি ক্রয় করিবার জন্য মরিয়া হইয়া উঠিবেন। উহারা যেই জমি কিনতে চাইবেন উহা কমপক্ষে ত্রিশ ফুট পানির নিচে থাকিতে হইবে। কারন এই পদের জমিরর দাম অনেকটা পানির দরের ন্যায় হইয়া থাকে। ক্রয় করিবার পর উনি কয়েকযুগ ধরিয়া অপেক্ষারত থাকিবেন কবে ওই পানির ত্রিশ ফুট নীচের জমি নদীতে চর পরিবার ন্যায় ভাসিয়া উঠিবে।

উহারা পুরুষ মানুষের যে ছোট একখান অন্তর্বাস পরিধান করিতে হয় প্যান্ট পরিবার জন্য তাহা ক্রয় করিবার জন্য ফুটপাথের অলি গলি পাকস্থলী খুঁজিয়া এক খান অন্তর্বাস পছন্দ করিবেন এবং বিজ্ঞানের ছাত্র যাহারা রহিয়াছেন তাহাদের নিশ্চয় মনে রহিয়াছে যে ব্যবহারিক ক্লাসে সরল দোলক নামক একখান পরীক্ষা করিতে হইত এই ভাবে যে দোলককে ধরিয়া নির্দিষ্ট উচ্চতায় এবং দূরত্বে নিয়া ছাড়িয়া দিতে হইত এবং উহার রিডিং লিপিবদ্ধ করিতে হইত। ইহারা অন্তর্বাসের ইলাস্টিক টান দিয়া দীর্ঘক্ষণ পরীক্ষা করিয়া নিস্চিত হইতে চাহেন যে,ইহা আগামী তিন বৎসর পর্যন্ত টাইট থাকিবে। বিক্রেতা বিরক্ত হইয়া বলিবেন স্যার যেই ভাবে টানিতেছেন তাহাতেতো স্মল সাইজও ডাবল এক্সেল সাইজ হইয়া যাইতেছে। আমি কেমনে এগুলা অন্যদের কাছে বেচিব। যাই হোক তাহার পর জিজ্ঞাস করিবেন ইহার রং উঠিয়া যাইবে কিনা। দেখিবেন একই অন্তর্বাস পরিতে পরিতে এবং ধৌত করিতে করিতে তাহার কালো অন্তর্বাসও সাদা হইয়া যাইবে।

বিদ্র: কৃপনতা বা কৃচ্ছতা সাধন করা কোনোও অপরাধ নহে,ক্ষেত্র বিশেষে ইহা জরুরিও বটে। কিন্তু ইহা ভুলিয়া যাইবেন না অপনার এই কৃচ্ছতা সাধন করিয়া সঞ্চিত অর্থ কিংবা স্থাবর অস্থাবর কোনও সম্পত্তি আপনার মৃত্যুর পর উহা কবরে কিংবা চিতায় লইয়া যাইবার কোনও সুব্যবস্থা নাহি।